ছৈলা গাছ

দুর্যোগ প্রবণ উপকূলের পরিবেশ সুরক্ষা করার জন্য ছৈলা গাছের এক বিরাট ভুমিকা রয়েছে ।

আমাদের বলেশ্বর উপকূলবর্তী অঞ্চল ছাড়া এ গাছ তেমন একটা চোখে পড়ে না।এটি মুলত ম্যানগ্রোভ উদ্ভিদ । নদির পাড়ে জন্মান এই গাছের টক জাতীয় কেওড়া ফলের মত তবে আকারে একটু বড় ফল এবং দারুণ মিষ্টি গন্ধ যুক্ত ফুল হয় ।

কাঠ হালকা, সূক্ষ্ম এবং এমনকি textured, ভাল মানের না, অস্থায়ী, মাঝারিভাবে টেকসই।

Scientific name: Sonneratia caseolaris (L.) Engler
Vernacular name: Choyla, Ora, Soyla
Family: Sonneratiaceae

বাংলাদেশ, ভারত, থাইল্যান্ড, জাভা, শ্রীলংকা, মায়ানমার, মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া, ফিলিপাইন এবং নিউ গিনিতে এ গাছ জন্মায়। বাংলাদেশে, সুন্দরবনের পূর্বাঞ্চলীয় এবং উত্তরাঞ্চলে এবং চকোরিয়া সুন্দরবনের (কক্সবাজার) এবং উপকূলীয় বেল্টের মধ্যে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা পানির তলদেশে তাজা এবং কম লবণাক্ত এলাকায় প্রচুর পরিমাণে এ গাছ পাওয়া যায়।

ছৈলা গাছ
ছৈলা ফুল

এটি একটি চিরহরিৎ বৃক্ষবিশেষ । ফুল গুলোর গোড়ার দিকে কিছুটা কেটে পানিতে বেশ কিছু সময় ভিজিয়ে রাখলে ফুলের ভেতর মিষ্টি মধু পাওয়া যায় যা এ অঞ্ছলের মানুষের কাছে খুবই প্রিয় ।অনেককে আবার এই গাছের ফল রান্না করেও খেতে দেখা যায় ।

এর কাঠ জ্বালানী ও আশবাবপত্র ছাড়াও নৌকার নোঙ্গর হিসেবে ব্যাবহার করা হয় ।

তবে এ গাছের সবচেয়ে কার্যকরী এবং উপকারি দিক হল এটি দুর্যোগ প্রতিরক্ষা মুলক কাজে খুবই সহায়ক ।

একনজরে এখানে এই গাছের সংক্ষিপ্ত পরিচিতি তুলে ধরলামঃ

১. এর নাম : ছৈলা Sonneratia caseolaris, Family: Sonneratiaceae.
২. বাংলায় আর একটা আঞ্চলিক নাম : ওড়া।
৩. এটির ফল কেওড়ার মতন দেখতে, তবে কেওড়ার ফল আকারে আরও ছোট। কেওড়া আর এটি একই গণের

 ছৈলা ফুল, মধু, ঘ্রান
পানিতে ভিজিয়ে রাখা ছৈলা ফুল, মধুর অপেক্ষা

সদস্য।
৪. ফল টক স্বাদের, রান্না করে বা এমনি খাওয়া যায়। জেলিও বানানো যায়।
৫. দেশের দক্ষিণাঞ্চলে, যেখানে জোয়ার-ভাঁটা হয় সেখানে, গাছটি দেখতে পাওয়া যায়।

৬. এর ফুল ভিজিয়ে রাখা হয় সারা রাত। ভোরে পাওয়া যায় চমৎকার, সুস্বাদু মধু।
৭. কেওড়া ফুল ধূসর সাদাটে। আর ওড়ার ফুল লাল মিশ্রিত ।
৮. গাছটি ম্যানগ্রুভ বা লবনাম্বুজ। এর শ্বাস মূল হয়।
৯. এর ফল বোয়াল মাছের প্রিয় খাদ্য।
১০. রাতে এই ছৈলা গাছে সবচেয়ে বেশি জোনাকি পোকা আশ্রয় নেয়।
১১. এই গাছের পাতা হরিনের খাদ্য।

এখান থেকে

আমাদের গ্রামের বাড়ি আমরা দল বেঁধে নৌকায় করে এই ফুল আনতে যাই ।

ছৈলা ফুল , নৌকা ভ্রমন
নৌকায় করে ছৈলা ফুল আনতে যাওয়া

 

অনেকেই এই দারুণ গাছটির সম্পর্কে জানে নয়া বা জানার সুযোগ পায় নয়া । তাই এই ক্ষুদ্র প্রচেষ্টা । ভালো থাকবেন ।

ফেসবুকে আমিঃ arafat.rana.95

 

Similar Posts:

    None Found

Facebook Comments

খুবই সাধারণ সাধাসিধে একজন মানুষ। টেকনোলজি ভালবাসি , ভালবাসি নতুন কিছু শিখতে। আর বিশ্বাস করি শেখানটাই শেখার সবথেকে ভালো মাধ্যম।

2 Replies to “ছৈলা গাছছৈলা গাছ এবং ছৈলা ফুল”

Leave a Reply

Your email address will not be published.